নিষিদ্ধ ইস্তেহার

“হাত থেকে হাতে বুক থেকে বুকে করে দেব গোপনে পাচার, ভালোবাসার নিষিদ্ধ ইস্তেহার…ভালোবাসার নিষিদ্ধ ইস্তেহার”

রাষ্ট্রীয় এবং ধর্মীও সংকীর্ণতার সীমানা পেড়িয়ে যে মানুষটি বাংলা ভাষায় অসংখ্য গান রচনা করে, সুর ও কণ্ঠ দিয়ে গিটারে তুলেছেন, যার গিটার বারবার প্রতিবাদে ফেটে পড়েছে সমকালীন রাজনীতি, নিপীড়ন ও মৌলবাদের বিরুদ্ধে, ‘বিদ্রোহী বিচ্ছু’ ছোট্ট ছেলে মেয়েদের ভালবেসে যিনি তাঁর ‘নিষিদ্ধ ইস্তেহার’ ছড়িয়ে দিয়েছেন বহুবার বহু আন্দোলনে, সিঙ্গুর থেকে শাহবাগ… যার গানে বারবার গর্জে উঠেছে গন জাগরন, তিনি কবীর সুমন।

কবীর সুমন হচ্ছেন সেই বাঙালি যাঁর মধ্যে মিশে আছে ধ্রুপদী সেকাল, মৌলিক একাল। কবি, সুরকার, গায়ক, গিটারিস্ট, সাংবাদিক, অভিনেতা এবং সর্বোপরি একজন বিদগ্ধ বাঙ্গালি – কত বিচিত্র কবির সুমনের দস্যিপনা, কী বিপুল তাঁর বিচরণক্ষেত্র, কী লজ্জ্বাকর আমাদের মধ্যমেধার আটপৌরেমি তাঁর বৈচিত্রের তুলনায়! আধুনিক বৈদগ্ধ্যে, মননে, বিচ্ছুরণে সুমন বেরিয়ে এসেছেন গেরস্তপোষ, ম্যাড়ম্যাড়ে, মধ্যমেধার বঙ্গ পরিবহ থেকে।

কবীর সুমন গেয়েছেন “একটুর জন্য কত কিছু হয় নি, ক্ষয়ে যাওয়া আশা তবু পুরটা ফুরায় নি”।
আমাদের কাজটি কেনো জানি “বুকের ভিতর যত কথা আছে সব ব্যাকারণ ভুলে” গিয়ে শুরু হয়ে আর এগোয় না, তারপরও ক্ষয়ে যাওয়া আশাটা পুরপুরি ফুরায় না। তাঁর গান যতবার শুনি ততবারই না-পারার এ অক্ষমতা আমাদেরকে ভীষণ যন্ত্রনা দেয়। “যত দূরে, দূরে, দূরে যাবে বন্ধু / একই যন্ত্রণা পাবে, একই ব্যথা ডেকে যাবে, নেভা নেভা আলো যতো বার জ্বালো, ঝড়ো হাওয়া লেগে তার শিখা নিভে যাবে।” ক্ষয়ে যাওয়া আশাটাকে সম্বল করে আবার হাল ধরে বসি, আবার আলো জ্বালে, আমাদের ক্ষমতার সীমাবদ্ধতার ঝড়ো হাওয়া লেগে বারবার তার শিখা নিভে যায়। তারপরও হাল ছাড়ি না। যিনি গেয়েছেন “হাল ছেড়ো না বন্ধু…” তাঁকেই নিয়ে কিছু করতে গিয়ে হাল ছেড়ে দেব তা কি হয়?

প্রচার বিমুখ ক্ষণজন্মা এ মানুষটির সকল গানের একটি আর্কাইভ করে তোলার ইচ্ছে আমাদের অনেকদিনের। সে আপত-অসম্ভব কাজটি শুরু করলাম আমরা কয়েকজন সুমনের অনুরাগি। অসম্ভবের চোখ-রাঙানি ভালোবাসার অহংকারে উপেক্ষা করতে পারবো এ দুঃসাহস পাথেয় করে আমাদের এ যাত্রা। এই ওয়েবসাইটটির সাথে ব্যক্তি “কবীর সুমন” নিজে প্রত্যক্ষ বা পরক্ষ কোন ভাবেই জড়িত নন। তবে আমাদের কাজের অনুপ্রেরণায় সুমন জড়িয়ে আছেন ওতপ্রোত ভাবে।

‘জীবন’ সংশ্লিষ্ট এমন কোন বিষয়বস্তু খুঁজে পাওয়া দুষ্কর, যা সুমনের গানের অন্তর্গত নয়। গানটা শুধু কণ্ঠে বসালেই, সুর মেশালেই যে শিল্পী হয়ে উঠা যায় না, সেই জীবন বোধ ও পরিস্থিতিকে হৃদয়ঙ্গম করতে হয়, জনপ্রিয়তা অর্জনের তাগিদে নয়, গভীরে অনুধাবন করে অনুভূতি গুলোকে তুলে আনাটাই যে শিল্পীর সার্থকতা, সুমনের গান না শুনে এসব বুঝাটাও দুষ্কর।

শুধু গান নয়, সুমনের জীবন ও কর্ম নিয়ে একটি আর্কাইভ তৈরি করা এবং বর্তমান প্রজন্ম, যারা কেউ কেউ বাংলা গান তাচ্ছিল্য বসত শুনেন না বা যারা “আমি তুমি” সর্বস্ব বাংলা গানের অগভীরে হাস্যকর ভাবে ডুবে গেছেন এবং আগামী প্রজন্ম, যারা গর্ব করে বলতে পারবে “আমার ভাষাতেও এমন একজন শিল্পী ছিলেন/আছেন, যার প্রতিবাদ দিগন্তে বিস্তৃত হয়ে আজও বেঁচে আছে”, তাদের কাছে সুমনের গান, কথা, জীবন ও কর্ম পৌঁছে দেওয়াই ওয়েবসাইটটির মূল উদ্দেশ্য। এখানে কোন বাণিজ্যিক বা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য খোঁজা নিষ্প্রয়োজন।

It's only fair to share...Share on FacebookTweet about this on TwitterGoogle+

Facebook

Get the Facebook Likebox Slider Pro for WordPress